ঝিনাইদ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের দুই পাশে যত্রতত্র কাঠ ফেলে রাখায় বাড়ছে দূর্ঘটনা

ঝিনাইদ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের দুই পাশে যত্রতত্র কাঠ ফেলে রাখায় বাড়ছে দূর্ঘটনা

ঝিনাইদ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের দুই পাশে যত্রতত্র কাঠ ফেলে রাখায় বাড়ছে দূর্ঘটনা

ঝিনাইদ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের দুই পাশে যত্রতত্র কাঠ ফেলে রাখায় বাড়ছে দূর্ঘটনা

ঝিনাইদহ- চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের দু,পাশে এক শ্রেনীর অসাধু কাঠ ব্যাবসায়ীকরা আইনের তোক্কা না করে দিঘর্দিন ধরে মহাসড়কের পাশে যত্রতত্র কাঠ রাখছে।

অথচ এই সড়কটি,অতি গুরুুত্বপুর্ন এবং ব্যস্ততম সড়ক। কাঠ রাখার কারনে দুরপাল্লার পরিবহনের চলাচলে বাধা সৃষ্টি হচ্ছে। জন সচেতনার অভাবে প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা । পথোচারিরা অতিষ্ট হয়ে পড়ছে। শরিফুল জানান আমরা চেয়ারম্যানকে বলেছি যাতে রাস্তার পাশ থেকে কাঠ শরাতে কিন্তু আজানা কারনে আজ পর্যন্ত কোন কাজ হয়নি।

এদিকে যত্রতত্র কাঠ রাখায়, ঘটছে দুর্ঘটনা। খালি হচ্ছে মায়ের কোল,পঙ্গুত্বর জীবন নিয়ে অনেকের পথ চলতে হচ্ছে। অথচ কর্তপক্ষের কোন নজর দারী দেই। এতে করে সাধারন মানুষের মনে মিশ্রপ্রতিক্রীয়া দেখাদিতে শুরু করেছে। সরে জমিনে দেখা গেছে বৈডাঙ্গা,সাধুহাটি ১২মাইল,সাধুহাটি তেল পাম্প,সাধুহাটি মোড়,১২মাইল ব্রীজ এলাকায় রাস্তার সাথে কাঠ রেখে সমস্যা সৃষ্টি করছে এসব হেবী ওয়েটের টাকা ওলা কাঠ ব্যবসায়ীকরা।

এদিকে সাধুহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী নাজীর উদ্দীন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ,আমি নিজেও বিষয়টি দেখেছি রাস্তার পাশে কাঠ রাখা হচ্ছে। তাছাড়া এলাকা বাসি আমাকে বলেছে। তাদের অভিযোগের কারনে আমি কাঠ ব্যবসায়ীকদের বলেছি কিন্তু তারা কোন খুঠোর জরে কাঠ রাখছে এমন ব্যবস্ততম মহাসড়কে ,আমার মাথাই আসছে না। আমি জেলা প্রশাসক মহাদয়কে বিষয়টি আমলে নিয়ে এই পরিবেশ নষ্ট কারী কাঠ ব্যবসায়ীকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করার অনুরোধ করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *