Mon. Nov 18th, 2019

ঝিনাইদহ নিউজ

সবার আগে সর্বশেষ

আইফোন টেনের জন্য কেন অপেক্ষা করবেন?

1 min read
আইফোন টেনের জন্য কেন অপেক্ষা করবেন?

আইফোন টেনের জন্য কেন অপেক্ষা করবেন?

আইফোন টেনের জন্য কেন অপেক্ষা করবেন?
আইফোন টেনের জন্য কেন অপেক্ষা করবেন?

আইফোন টেন আসছে বলে অনেকেই আইফোন ৮ বা ৮ প্লাসে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। নভেম্বরে বাজারে আসছে মার্কিন প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান অ্যাপলের ‘চমক’ আইফোন টেন। অ্যাপলপ্রেমীদের অনেকেই নতুন এই স্মার্টফোনটির জন্য অপেক্ষায় আছেন। কিন্তু কেন এই অপেক্ষা? অপেক্ষার পেছনে বেশ কিছু কারণ আছে। জেনে নিন কয়েকটি কারণ:

বেজেলহীন ডিসপ্লে: আইফোন টেনকে বলা যায় উন্নতমানের আইফোন ৮। এটি ছোট কাঠামোতে (চেসিস) বড় ডিসপ্লের ফোন। আইফোন টেনে রয়েছে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লে। এতে বলতে গেলে কোনো বর্ডার নেই। তাই জায়গার কোনো অপচয় হয়নি। আইফোন ৬, ৭ ও ৮-এর ডিসপ্লে প্রস্থে ৪ দশমিক ৭ ইঞ্চি, যা আইফোন টেনের সঙ্গে মিল রয়েছে। তবে দৈর্ঘ্যের দিক থেকে আইফোন টেনের ডিসপ্লে কিছুটা বড়। এর ফলে অনুভূমিকভাবে কনটেন্ট দেখার ক্ষেত্রে ২০ শতাংশ বেশি জায়গা পাওয়া যায়।

ক্যামেরা: আইফোন টেনের পেছনে যে ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে, তা আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের চেয়ে উন্নত। আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের ক্যামেরা বিভিন্ন পরীক্ষায় অন্যান্য ক্যামেরাকে পেছনে ফেলেছে। প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা জানান, আইফোন টেনের ক্যামেরা আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের ক্যামেরাকেও ছাড়িয়ে যাবে। আইফোন টেন ও ৮ প্লাসে ১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল ও টেলিফটো ক্যামেরা, অপটিক্যাল জুম, ওয়াইড অ্যাঙ্গেল অ্যাপারচার এফ/১.৮ আছে। তবে আইফোন টেনে টেলিফটোতে অ্যাপারচার এফ/২.৪ থাকায় এটি আইফোন ৮ প্লাসের চেয়ে উন্নত। আইফোন ৮ প্লাসের টেলিফটোতে অ্যাপারচার এফ/২.৮। অ্যাপারচার কম থাকায় কম আলোতে উন্নত ছবি তুলতে পারবে আইফোন টেন। এ ছাড়া আইফোন টেনের ডুয়াল অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন থাকায় ছবি হবে ঝকঝকে।

ফেস আইডি: আইফোন টেনে যুক্ত হয়েছে ফেস আইডি ফিচার, যা নতুন ট্রুডেপথ ক্যামেরার মাধ্যমে ব্যবহার করা হয়। ফিচারটি আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসে নেই। টাচ আইডির পরিবর্তে আইফোন টেন আনলক করতে ফেস আইডি ব্যবহৃত হবে। অ্যাপল পের মতো ফিচার ব্যবহার করতে এটি কাজে লাগবে। আইফোন টেনে যে সেন্সর, ক্যামেরা, চিপ ও ডট প্রজেক্টর আছে, তা অন্য আইফোনে নেই। এতে ব্যবহারকারীর মুখের ওপর ৩০ হাজার অদৃশ্য ডটের মাধ্যমে মুখের মানচিত্র তৈরি করা হয়, যা বিশেষ ইনফ্রারেড রশ্মির মাধ্যমে অন্ধকারের চেহারা চিনতে সাহায্য করে।

হোম বাটন নেই: আইফোন টেনে হোম বাটনকে বিদায় জানানো হয়েছে। হোম স্ক্রিনে ফিরতে সোয়াইপ করতে হবে।

ডিসপ্লে: আইফোন টেনে পিক্সেল ঘনত্ব অন্যান্য সব আইফোনের চেয়ে বেশি। ২৪৩৬ বাই ১১২৫ পিক্সেল রেজুলেশনের ডিসপ্লেতে প্রতি ইঞ্চিতে পিক্সেল ঘনত্ব ৪৫৮ পিপিআই। আইফোন ৮ প্লাসে পিক্সেল ঘনত্ব ৪০১ পিপিআই।

বাজার গবেষণাপ্রতিষ্ঠান আইএইচএস মারকিটের বিশ্লেষক ওয়াইন ল্যাম বলেন, প্রায় ১ হাজার ডলার দামের আইফোন টেনের জন্য নতুন ফিচারগুলো যুক্ত করতেই হতো। তবে, এটা শুধু তত্ত্ব। কিন্তু আইফোন টেন দিয়ে নকশার ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন আনল অ্যাপল। আইফোন টেনকে বাজারে আনতে প্রায় দুই বছর ধরে প্রযুক্তিগত উন্নয়ন ও যন্ত্রাংশ তৈরিতে কাজ করতে হয়েছে অ্যাপলকে। তথ্যসূত্র: ফোর্বস অনলাইন

সৌজন্যেঃ প্রথম আলো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *