Mon. Nov 18th, 2019

ঝিনাইদহ নিউজ

সবার আগে সর্বশেষ

‘আমরা তাকে শৈলকুপাতে দেখতে চায় আরো কিছু সময়’

1 min read

বিশেষ সম্পাদকীয়
ইউএনও অর্থাৎ উপেজলা নির্বাহী কর্মকর্তা । জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন শাখার কর্মকর্তা তিনি, সর্বপরি প্রজাতন্ত্রের একজন কর্মচারী । শুধু এ পদেই নয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অধীনে চাকুরীরত সবাই প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী । আর প্রজাতন্ত্রের মালিক জনগন । কিন্তু প্রজাতন্ত্রের কতজন কর্মচারী নিজেকে কর্মচারী ভাবেন, তা হয়তো হিসাবের ব্যাপার, কর গুণে গুণে এই আমজনতা বলে দিতে পারবে বই কি ! তবে শৈলকুপায় সরকারের মাঠ পর্যায়ের একজন( ইউএনও) কর্মচারী কে আমরা স্ব-চোক্ষে দেখেছি, যিনি নিজেকে কখনোই কর্মকর্তা ভাবতেন না, ভাবেননি । জনগণ একজন পাবলিক হিসাবেই যেন তাকে চিনত বা চেনে । এমন অবস্থা দেখেছি বলেই তার বিদায়ের কথা শুনে শৈলকুপা উপজেলার জনপ্রিয় ‌’শৈলকুপা নিউজ২৪’ অনলাইন তাকে নিয়ে বিশেষ সম্পাদকীয় লিখতে বাধ্য হলো ।

এই ভুমিকা পড়তে পড়তেই এতক্ষণে হয়তো সবাই বুঝে গেছেন আমরা কথা বলছি ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: উসমান গনি নিয়ে। আজ ৮ জুলাই বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে তার বদলী আদেশ এসেছে মেহেরপুরের মুজিবনগরে তিনি যাচ্ছেন। আর এই চলে যাওয়ার কথা যখনই জানাজানি হয়েছে তখনই থেকেই যেন ভারী হয়ে উঠেছে শৈলকুপার আকাশ-বাতাস । বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ তো বটেই কিশোর, যুব-বৃদ্ধ থেকে শুরু করে কৃষক, শ্রমিক, মুটে-মুজুরের কন্ঠে এক ধরনের জড়তা চলে এসেছে । কারণ সবার অজান্তেই তিনি যে হয়ে উঠেছিলেন একজন অভিভাবক । যখন কোন পরিবারে বিপদ আসে তখন অনেকেই টের পায় না আর সেই বিপদ ঘরের চৌকাঠে এসে দাঁড়ায় তখন পরিবার শুরু করে দৌড়ঝাপ কিন্তু তখন আর করণীয় থাকেনা । ঠিক, ঠিক এমন মুহুর্তে যিনি পাশে দাঁড়িয়ে ঐসব পরিবার কে সেই বিপদ থেকে রক্ষার আশ্বাস দেন, সমাধানের পথ দেন, দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি হলেন শৈলকুপার এই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উসমান গনি ।
শৈলকুপার সাধারণ, সুবিধা বঞ্চিত, অবহেলিত মানুষের অভিভাবকের কঠিন দায়িত্ব কাধে নিয়েছিলেন তিনি। শৈলকুপার সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানায় পরিণত হয়েছিলেন। সমাজ সংস্কারক হিসেবে নির্লোভ, নিরঅহংকারী এমন মানুষ আর মিলবে না এমন আস্থা আর ভাবনায় তিনি শৈলকুপাবাসীকে এক সুতোয় গেঁথে দিতে সক্ষম হয়েছেন । শৈলকুপার মতো এমন রাজনৈতিক অস্থিরতা, হানাহানি, খুনোখুনী, কাইজ্যা, মারামারি আর অতি আবেগী আত্মহত্যা প্রবণ মানুষের বসবাসের ভীড়ে তাদের ভালবাসার জায়গাতে নিজেকে জায়গা করে নেয়া কি খুব সহজ, অথচ এই কর্মকর্তা সেটাতে সক্ষম হয়েছেন বলে দৃড়ভাবে বিশ্বাস করে ‘শৈলকুপা নিউজ২৪’ । সরকারী চাকুরীর সুবাদে তার বদলী হয়তো খুব স্বাভাবিক একটা ঘটনা কিন্তু এটা শৈলকুপাবাসীর কাছে অস্বাভাবিক লাগছে । এই কর্মকর্তার বিদায়ের খবরে স্যোশাল মিডিয়াতেও দেখা গেছে বেদনা আর কষ্টদায়ক সব স্ট্যাটাস । কেউই মেনে নিতে পারছে না এমন বিদায় কে ।

সূদুর দক্ষিণ কোরিয়া প্রবাসী S.m. Uzzol তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন ‌”….. প্রিয়জনকে আমরা হয়তো কখনোই বিদায় দিতে চাই না। পারলে কলিজার ভেতর, অন্তরের গহিনে তাকে বেঁধে রাখি। কিন্তু চাইলেই কি তা পারা যায়? প্রিয় মানুষরাও তো জীবন শূন্য করে দিয়ে বিদায় নেয়। তাদের অভাবে আমাদের জীবন মুহূর্তের জন্য নীরব-নিথর, নিস্তব্ধ হয়ে যায়। কিন্তুু আজকে কেন এত খারাপ লাগছে– কেন জানি না নিজের অজান্তেই চোখের কোণে দুই ফোটা চোখের জল এসে বলছে “যেতে দিতে চাইনা তবুও কেন যেতে দিতে হয়।
সব সময় দোয়া করি যেখানে ই থাকেন ভাল থাকবেন।
চাকরির সুবাদে শৈলকুপার সাধারণ, সুবিধা বঞ্চিত, অবহেলিত মানুষের অভিভাবকের কঠিন দায়িত্ব কাধে নিয়েছিলেন। শৈলকুপার সাধারণ মানুষের আস্থার ঠিকানায় পরিণত হয়েছিলেন। সমাজ সংস্কারক হিসেবে নির্লোভ, নিরহংকারী উসমান গণি স্যারকে মনে রাখবে শৈলকুপার সাধারণ মানুষেরা। তবে, যেখানে থাকেন আল্লাহ ভালো রাখুন । শুভকামনা রইল স্যার আপনার জন্য ”। শৈলকুপার জনপ্রিয় ফেসবুক আইডি শৈলকুপা পরিক্রমা এই কর্মকর্তার বদলী আদেশ প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে বিভাগীয় কমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে লিখেছে ”বদলীর আদেশ ফিরিয়ে নিতে বিভাগীয় কমিশনার এর প্রতি আহবান।
শৈলকুপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব উসমান গণি কে আজ ৮ জুলাই বিভাগীয় কমিশনার খুলনার এক আদেশে মুজিবনগর বদলী করা হয়েছে। আদেশ ফিরিয়ে নিতে বিভাগীয় কমিশনার এর প্রতি শৈলকুপাবাসির আহবান।
খবরটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে শৈলকুপার বিভিন্ন স্তর থেকে শৈলকুপা পরিক্রমার মেসেঞ্জারে অসংখ্য অনুরোধ এসেছে বিভাগীয় কমিশনার এর আদেশ ফিরিয়ে নিয়ে জনাব উসমান গণি কে শৈলকুপায় পূনর্বহাল করার জন্য।
শৈলকুপার জনপ্রিয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর বদলীর আদেশ ফিরিয়ে না নিলে শৈলকুপাবাসি আগামীকাল মানববন্ধন কর্মসূচি সহ নানাবিধ কর্মসূচি গ্রহণ করবে বলে জানা গেছে। এ যাবৎকালে জনাব উসমান গণির মতো জনপ্রিয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শৈলকুপায় আগমন করেনি বলে জনতার মত। আমরাও জানি মহান এই মানুষটি শৈলকুপায় বিশেষ কিছু কর্মসূচী হাতে নিয়েছেন। বদলীর আদেশ ফিরিয়ে নিয়ে কাজগুলো সম্পন্ন করার সুযোগ দিতে বিভাগীয় কমিশনার এর প্রতি শৈলকুপা পরিক্রমার পক্ষ থেকে আবেদন জানাচ্ছি”। Fazlur Rahman Sohel Rana নামের একজন লিখেছে ”অনেক কিছু লিখতে মন চাইছে,তবে লেখার মতো মানসিকতা নাই…
সাধারন মানুষ জানতো না যে একটা উপজেলায় একজন uno থাকে,আপনি সেটা জানিয়েছেন।
সাধারন মানুষ জানত না যে, uno স্যার ও মানুষের ভালো মন্দ দিক দেখেন,আপনি সেটা জানিয়েছেন।
সাধারন মানুষ জানত না যে,কেউ বিপদে পড়লে uno তাকে সাহায্য করতে পারেন,আপনি সবাইকে জানিয়েছেন।
সাধারন মানুষ জানত না যে,পারিবারিক,সামাজিক সমস্যাও uno স্যার মীমাংসা করে দিতে পারেন,আপনি সেটা করে দিয়েছেন।
এমন আরো অনেক কথা স্যার।
মানুষ মনে করতো ঝামেলা মানে পুলিশ,পুলিশ মানে কেস,কেস মানে টাকা,আলাদত এসব।
আপনি এসব ব্যাতী রেখেই সমাধান করেছেন অনেক কিছু,
আমার নিজেরও টা কাজের সসাধান করে দিয়েছেন।
স্যার,এর আগে কোন কোন অফিসার এসেছিলো তার খবর জানি না,কারন আগে uno স্যার মানেই গাড়িতে করে বেড়ানো,জাতীয় অনুষ্ঠানগুলোতে অংশগ্রহন করা এটাই বুঝতাম।
কিন্তু আপনি অন্য কিছু বুঝিয়েছেন।
আপনার প্রতি পুরো শৈলকুপাবাসী কৃতজ্ঞ।
আমরা হতাশ,কারন আপনার মতো আর কেউ আসবে না,কেউ বৃদ্ধ ভ্যা চালকের খবর নিবে না,কেউ ছেলের হাতে মার খাওয়া বাবার ব্যবস্থা করবেন না।
কেউ রাহেলা বেগমকে সাহায্য করবেন না,কেউ টিনের চালার পরিবর্তে আধা-পাকা ঘর করে দিবেনা।—-
সত্যিই স্যার,আপনার জন্য সমগ্র শৈলকুপাবাসী আজ শোকাহত!…
যদি টাকা দিয়ে আপনার বদলি স্থগিত করা যেত,বিশ্বাস করেন,এই রাতের ভেতরেই শৈলকুপার মানুষ কয়েক লাখ টাকার ব্যবস্থা করে ফেলতো!…..
Miss you sir!..”। MH Antu নামের এক কিশোর লিখেছে ”Uno স্যার এর হঠাৎ বদলি মানা যায় না। আমরা স্যার এর বদলি চাই নাহ 😭 আসুন সবাই বদলির বিরুদ্ধে মানববন্ধন করি” । মুহাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন নামের একজন তার আইডিতে লিখেছে ”শৈলকুপাবাসী ইউএনও স্যারের বদলি চাই না। কারও একক সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়া যায় না!”। Lokman Hossain নামের একজন লিখেছে ”অকুতোভয় মানব দরদী ইউ এন ও উসমান গনি স্যারের বদলির কথা জেনে যারপরনাই ব্যথিত হলাম। যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন” । Sr Sanath Roy লিখেছেন ”আমাদের শৈলকুপা বাসীর প্রান প্রিয় সাহসী সম্মানিত মাননীয় একজন ব্যক্তি হচ্ছেন আমাদের uno osman gani স্যার যে তার কাজকর্মের জন্য সবার কাছে প্রিয় ও ভালোবাসার পাত্র হয়ে উঠেছেন…. তিনি সবসময় আমাদের সাথে থেকেছেন আমাদের পাশে থেকেছেন আমাদের শৈলকুপার উন্নয়নের জন্য কাজ করেছেন….সত্য কথা বলতে গেলে তার মত মানুষ আমি কমই দেখেছি যিনি শৈলকুপার কথা ভাবেন শৈলকুপার জনসাধারণের কথা ভাবেন….তার হাত ধরে শৈলকুপার অনেক উন্নতি সাধিত হয়েছে..এমন একজন ভালো মানুষকে আমরা শৈলকূপা বাসী কখনো হারাতে চাই না এজন্যই বুধবার সকাল 10 ঘটিকায় শৈলকুপা ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গণে মানববন্ধনের আহ্বান করা হয়েছে। আসুন আমরা সবাই মিলে আমাদের প্রাণ প্রিয় মানুষটাকে আমাদের ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ করে রাখি” । এভাবে ফেসবুকে চলছে নানান লেখা । যারা সবাই বদলী আদেশ মেনে নিতে পারছে না ।
শৈলকুপা নিউজ২৪ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়, বিভাগীয় কমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে এই মর্মে শৈলকুপা উপজেলার সর্বস্তরের মানুষের কাছে যিনি একজন আমলা হয়ে ওঠেনি, যিনি একজন কর্মকর্তা হয়ে ওঠেনি, যিনি কারো( আমজনতার) রক্তচক্ষু হয়ে ওঠেনি । বিপরীতে হয়ে উঠেছিলেন সবার আস্থার প্রতীক, উন্নয়ন আর ভালবাসার ঠিকানা, দুর্ণীতি আর স্বজনপ্রীতি যেখানে বাসা বাঁধেনি, থাক না আরো কিছুদিন সেই প্রিয়, শ্রদ্ধার ভালবাসার, ভাললাগার মানুষ প্রিয় উসমান গনি, প্রিয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ।

(আব্দুর রহমান মিল্টন,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি, ডিবিসি নিউজ)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *