দেশত্যাগের কারণ অনুসন্ধান করুন: বান কি মুন

দেশত্যাগের কারণ অনুসন্ধান করুন: বান কি মুন

দেশত্যাগের কারণ অনুসন্ধান করুন: বান কি মুন

দেশত্যাগের কারণ অনুসন্ধান করুন: বান কি মুন (ছবিঃ সংগৃহীত)

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হাজার হাজার মানুষের সমুদ্র পাড়ি দেয়ার পেছনের কারণ অনুসন্ধান করার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন।

তিনি জানিয়েছেন, মিয়ানমার, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য দেশের নেতাদের সঙ্গে তিনি জরুরিভিত্তিতে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। একই সঙ্গে তিনি তাদের অনুসন্ধান ও উদ্ধার তৎপরতা শুরু করা এবং এইসব অসহায় মানুষদের পুনর্বাসন ও স্বস্থানে ফিরিয়ে নেয়ার কার্যক্রম শুরু করার জোর তাগিদ দিয়েছেন।

শনিবার ভিয়েতনামের হেনয়ে তিনি এসব কথা বলেন। বান কি মুন বলেন, ‘মানুষের জীবন বাঁচানো গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু মানুষকে আরো বিপজ্জনক পরিস্থিতির মুখে ঠেলে না দেওয়াও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়।’

গত ১০ মে থেকে সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি বাংলাদেশি এবং মিয়ানমারের নির্যাতিত সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া এবং থাইল্যান্ডের উপকূলে আশ্রিত আছেন। আরো কয়েক হাজার গভীর সমুদ্রে আটকা পড়ে আছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। জাতিসংঘ সতর্ক করে দিয়েছে, সমুদ্রে আটকরা পড়া মানুষদের জীবিত উদ্ধারের সময় খুব দ্রুদ ফুরিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে গত শুক্রবার থেকে চারটি মালয়েশীয় জাহাজ সাগরে আটকা পড়াদের অনুসন্ধান শুরু করেছে। আরো তিনটি হেলিকপ্টার এবং তিনটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির নৌবাহিনী প্রধান আবদুল আজীজ জাফর।

গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তারা অনুসন্ধান কাজে সহায়তার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

1 comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *